পাওয়ার ব্যাংক কিনার আগে ৬টি গুরুত্বপূর্ণ টিপস এখুনি জেনে নিন | TrendzBD24

পাওয়ার ব্যাংক কিনার আগে ৬টি গুরুত্বপূর্ণ টিপস এখুনি জেনে নিন। 

power-bank-buying-tips

পাওয়ার ব্যাংক কেনার কথা ভাবছেন। তাহলে পোষ্টি আপনার জন্য। পাওয়ার ব্যাংক কিনার কিছু গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশনা রয়েছে। সেগুলো জেনে পাওয়ার ব্যাংক কিনলে আপনি অরিজিনাল ও ভাল মানের পাওয়ার ব্যাংক কিনতে পারবেন।

বর্তমানে মোবাইলফোন গুলোর ডিজাইন অনেক স্লিম হওয়ার পরেও কিন্তু কার্যক্ষমতা কমেনি উল্টো আরো বেড়ে গেছে। কিন্তু ব্যাটারি ছোট হয়ে যাওয়ার কারণে চার্জ এর জন্য একটু সমস্যায় পড়তে হয়। আবার আগের তুলনায় মোবাইল ফোন ব্যবহারের মধ্যে আসছে অনেক পরিবর্তন। তো এই অবস্থায় আমাদের প্রযোয়জন পরে একটি পাওয়ার ব্যাংকের। যাতে আমরা চার্জ শেষ হয়ে যাওয়ার পরেও যখন যেখানে ইচ্ছা মোবাইল চার্জ দিতে পারি। পাওয়ার ব্যাংকের পোর্টেবল সুবিধার কারণে এটি দিনদিন অনেক জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে বিভিন্ন দামের বিভিন্ন প্রোডাক্ট একসাথে পাওয়া যাচ্ছে। তাই কিছু নির্দেশনা জেনে নিন। যাতে ভাল মানের ও অরজিনাল পাওয়ার ব্যাংক নির্বাচন করতে পারেন।



১| ক্যাপাসিটর দেখে খেয়াল রাখুন


পাওয়ার ব্যাংকের মেইন হচ্ছে ক্যাপাসিট। ক্যাপাসিট যত বেশি হবে পাওয়ার ব্যাংকের পাওয়ার তত বেশি থাকবে। বর্তমানে বাজারে ১৫০০ থেকে শুরু করে ৩০ হাজার এমএইচ পর্যান্ত ক্যাপাসিটর পাওয়ার ব্যাংক পাওয়া যায়। এই অবস্থায় নির্ণয় করতে হবে যে আপনি বেশি চার্জ চাচ্ছেন পোর্টাবিলিটি চাচ্ছেন। এর উপর নির্ভর করে আপনাকে একটি ক্যাপাসিট বাছাই করতে হবে। একটি কথা অবশ্যই মনে রাখবেন যে অনেকে মনে করে মোবাইলের ব্যাটারি যদি ৪ হাজার এমএইচ হয় এবং পাওয়ার ব্যাংক যদি ২০ হাজার এমএইচ হয় তাহলে এই পাওয়ার ব্যাংক দিয়ে মোবাইল ৪ বার ফুল চার্জ দেওয়া যাবে। এর মানে এই নই যে কোম্পানি গুলো প্রোডাক্টের গায়ে মিথ্যা এমএইচ দিচ্ছে কোম্পানি ঠিকই দিচ্ছে। মোবাইল যখন বার বার পাওয়ার ব্যাংক দিয়ে চার্জ দেওয়া হয় তখন কিছু এনার্জি লস হয়ে যায়। এবং সব পাওয়ার ব্যাংকের ক্ষেত্রে কিন্তু ক্যাপাসিটর ১০০% পাওয়া যায় না। মোট ক্যাপাসিটর ৭০-৮০% পাওয়া যায়। তাই আপনি মোবাইল ৪ বার ফুল চার্জ করতে পারবেন না ৩ বার পারবেন।



২| পাস থ্রু চার্জিং ফিচার দেখে আছে নাকি দেখে নিন

power-bank-buying-tips

পাওয়ার ব্যাংকের অন্যতম জনপ্রিয় ফিচার হচ্ছে ফাস থ্রু চার্জিং। তাই পাওয়ার ব্যাংক কিনার সময় অবশ্যই পাস থ্রু চার্জিং আছে কিনা যাচাই করে নিন। আপনি যখন একটি নতুন পাওয়ার ব্যাংক কিনবেন তখন তার সাথে শুধু একটি ইউএসবি ক্যাবল দেওয়া হবে। আপনাকে নতুন পাওয়ার অ্যাডাপটার দেওয়া হবেনা, পাওয়ার ব্যাংকটি চার্জ করার জন্য। কারণ আপনার মোবাইল ফোনের সাথে আগে থেকে পাওয়ার অ্যাডাপটার দেওয়া থাকে। আর আপনি কোথাও ভ্রমনে গেলে একসাথে দুইটি অ্যাডাপটার নিয়ে যাবেন না তাই না ? এখন যদি আপনার পাওয়ার ব্যাংকে যদি পাস থ্রু চার্জিং থাকে তাহলে এটার সুবিধা হচ্ছে। প্রথমে আপনি মোবাইলফোনটি অ্যাডাপটারের মাধ্যমে বিদ্যুৎ থেকে চার্জ হবে তারপরে আরেকটি ক্যাবল দিয়ে আপনার পাওয়ার ব্যাংক চার্জ হবে।
এই ফিচারটি সব পাওয়ার ব্যাংকে থাকেনা। যেমন সাওমিতে এই ফিচারটি আছে আবার ওয়ান প্লাসে নাই। আপনি রাতে ঘুমানোর সময় যদি মোবাইল, পাওয়ার ব্যাংক একসাথে লাগিয়ে ঘুমিয়ে যান সকালে উঠে দেখবেন আপনার মোবাইল, ও পাওয়ার ব্যাংক দুইটি ফুল চার্জ হয়ে গেছে। ফিচারটি অনেক প্রয়োজনীয় একটি অ্যাডাপটার দিয়ে দুইটি ডিভাইস একসাথে চার্জ দিতে পারবেন।
তাই ফিচারটি অবশ্যই দেখে নিবেন।



৩| প্রোটেকশন ফিচার দেখে নিন


পাওয়ার ব্যাংক কিনার সময় অবশ্যই প্রোটেকশন দেখে নিন। আপনার পাওয়ার ব্যাংকের জন্য ক্যাপাসিট যেমন প্রয়োজন তেমনি আপনার পাওয়ার ব্যাংকের জন্য প্রোটেকশনটাও তেমনি প্রয়োজন। যেমন আপনি একটি হাই ক্যাপাসিটি ব্যাটারি বহন করছেন। সেটা আপনার পকেটে বা ব্যাগে বহন করছেন। তো এই অবস্থায় পাওয়ার ব্যাংকের প্রোটেকশন অনেক বেশি প্রয়োজন হয়ে পরে। পাওয়ার ব্যাংক প্রস্তুতকারী বড় বড় কোম্পানি গুলো পাওয়ার ব্যাংকের মধ্যে মূলত ৪ টি প্রোটেকশন দিয়ে থাকে। যেমন:


  • ওভার চার্জিং প্রোটেকশন
  • ওভার ভোল্টেজ প্রাটেকশেন
  • সর্ট সার্কিট প্রাটেকশেন
  • কোলার প্রাটেকশেন


এই চারটি প্রোটেকশন যদি আপনার পাওয়ার ব্যাংকে থাকে তাহলে আপনি নিশ্চন্তে পাওয়ার ব্যাংকটি ব্যাবহারও বহন করতে পারবেন। এবং এই চারটি ফিচার আপনার পাওয়ার ব্যাংকে থাকলে আপনার মোবাইলের কোন সমস্যা হবে না।
তাই পাওয়ার ব্যাংক কিনার আগে অবশ্যই এই ফিচার গুলো দেখে নিবেন।


৪| ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তি ফিচার দেখে নিন

power-bank-buying-tips

বর্তমানে মোবাইল ফোনের মতো পাওয়ার ব্যাংকেও ফাস্ট চার্জিং ফিচার এড করা হয়েছে। অ্যাডাপটার থেকে যেমন মোবাইল ফাস্ট চার্জিং সম্ভব তেমনি পাওয়ার ব্যাংকেও ফাস্ট চার্জিং করা সম্ভব। যে সব পাওয়ার ব্যাংকে ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তি থাকে সে পাওয়ার ব্যাংক গুলো দ্রুত চার্জ হয়ে যায় এবং মোবাইল ফোনও দ্রুত চার্জ করতে সক্ষ্বম। আপনার মোবাইল ও পাওয়ার ব্যাংক দুইটিতে যদি ফাস্ট চার্জিং সুবিধা থাকে তাহলে আপনাকে ঘন্টার পর ঘন্টা ক্যাবল লাগিয়ে বসে থাকতে হবে না। ৪০ মিনিট বা ১ ঘন্টার মধ্যে আপনার মোবাইল ফুল চার্জ হয়ে যাবে। তবে একটি কথা মনে রাখতে হবে যে আপনার মোবাইল ফোনে যদি ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তি না থাকে তাহলে ফাস্ট চার্জিং পাওয়ার ব্যাংক নিয়ে কোন লাভ হবে না।


৫| আউটপুট পোর্টস দেখে নিন


কিছু কিছু পাওয়ার ব্যাংকে ১টি সিঙ্গেল আউটপুট পোর্ট দেখতে পাওয়া যায়। আবার কিছু কিছু পাওয়ার ব্যাংকে ৩ - ৪ টি আউটপুট পোর্টস দেখতে পাওয়া যায়। এই দুই ধরনের আউটপুটের মধ্যে আপনি কোন আউটপুট সিস্টেমটি পছন্দ করবেন তা সম্পূর্ণ নির্ভর করবে আপনার ব্যাবহারের উপর। আপনি যদি একটি ডিভাইস চার্জ করতে চান তাহলে সিঙ্গেল আউটপুট পোর্ট কিনতে পারেন। আর যদি একাধিক ডিভাইস একসাথে চার্জ করতে চান তাহলে তিন/চারটি পোর্ট সিস্টেম পাওয়ার ব্যাংক কিনতে পারেন। আবার কিছু পাওয়ার ব্যাংকে দুইটি পোর্ট থাকলেও একটি পোর্টে কম পাওয়ার থাকে আরেকটিতে বেশি পাওয়ার।



৬| ব্র‍্যান্ডের পাওয়ার দেখে নিন


ভাল কোম্পানির বা ব্র‍্যান্ডের পাওয়ার ব্যাংক দেখে কিনুন। ব্র‍্যান্ডের প্রোডাক্ট বেশিরভাগ নকল হয়ে থাকে তাই কিনার সময় অবশ্যই প্রোডাক্টের গায়ে
ব্র‍্যান্ডের সিল দেখে কিনুন। ব্র‍্যান্ডের পাওয়ার ব্যাংকে গুলোর মধ্যে ভাল পাওয়ার ব্যাংক হচ্ছে। যেমম:




এই সব ব্র‍্যান্ডের পাওয়ার ব্যাংক গুলো কিনলে কোন সমস্যা হবেনা আশা করি। এবং এইসব কোম্পানির পাওয়ার ব্যাংক কিনলে ভাল সার্ভিস পাওয়া যাবে।

Post a comment

2 Comments