স্মার্টফোনের ব্যাটারি দীর্ঘদিন ভাল রাখার ১০টি গুরুত্বপূর্ণ টিপস এখনই জেনে নিন | 10 Tips For Save Battery Life

স্মার্টফোনের ব্যাটারি দীর্ঘদিন ভাল রাখার ১০টি গুরুত্বপূর্ণ টিপস এখনই জেনে নিন | 10 Tips For Save Battery Life




প্রতিটি নতুন অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন শক্তিশালী হার্ডওয়্যার এবং বৈশিষ্ট্যযুক্ত, কিন্তু দুর্ভাগ্যক্রমে, এটি একটি স্বল্প ব্যাটারির জীবন নিয়ে আসে। বৃহওর এবং উজ্জ্বল পর্দা, দ্রুত প্রসেসর এবং পটভূমিতে চলমান অ্যাআপ্লিকেশন গুলি সবসময় পাতলা ব্যাটারি থেকে পাওয়ার ড্রেন করে দেয়। অনেক সময় আমরা ও দায়ী থাকি ফোনের ব্যাটারির মেয়াদ শেষ হওয়ার পিছনে। আমরা অজান্তেই এমন কিছু কাজ করে থাকি যার ফলে আমাদের শখের স্মার্টফোনের ব্যাটারির মেয়াদ দ্রুত হয়ে আসে। আমরা সবাই কম বেশি অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন ব্যাবহার করে থাকি অ্যান্ড্রয়েড ফোনের প্রধান সমস্যা হল চার্জ নিয়ে। আজকে আপনাদের সাথে ১০টি টিপস শেয়ার করব যে গুলো আপনার সমস্যার কিছুটা হলেও সমাধান করবে।

১.পাওয়ার সেভিংস মোড ব্যাবহার করু

২.নিজেই ব্রাইটনেস সেট করুন

৩.আপনার ফোনে অব্যবহৃত বা খুম কম ব্যবহৃত অ্যাপ্লিকেশন।

৪. সঠিক পদ্ধতিতে ফোন চার্জে দেওয়ার       নিয়ম

৫.হোম স্ক্রিন সেট করুন

৬.নোটিফিকেশন সেট করুন

৭. এন্টিভাইরাস অ্যাপস

৮. থার্ডপার্টি অ্যাপস ব্যবহার থেকে বিরত  থাকুন

৯. গেইমস খেলা থেকে বিরত থাকুন

১০. নতুন মোবাইল চার্জ করার নিয়ম


১. পাওয়ার সেভিংস মোড ব্যাবহার করুন 


how-to-save-battery-life-android

আপনার ব্যাটারির জীবন সংরক্ষনের দ্রুততম উপায় হলো বেশিরভাগ অ্যান্ড্রয়েড ফোনের সেটিংসে অপশনে পাওয়ার সেভিং মোড নামের অপশন দেওয়া থাকে। এই অপশনটি অন করে আপনি আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনের ব্যাটারিটি আরও দীর্ঘস্থায়ী করে তুলতে পারবেন। এই সেটিংসটি অন করার জন্য আপনি আপনার ডিভাইসের সেটিংস অপশনে গিয়ে, ব্যাটারি সেটিংসে গিয়ে অন করতে করুন।


এই মোডটি আপনার ফোনের প্রসেসরকে সীমাবদ্ধ করে এবং স্ক্রিনের উজ্জ্বলতা প্রদর্শনকে হ্রাস করে, এর ফলে আপনার ফোনেটি ব্যাবহার করার সময় এবং ফোনে প্রয়োজনীয় ভিবিন্ন কাজ করার সময় শুধু মাত্র নুন্যতম ব্যাটারির শক্তি ব্যবহার করে থাকে। আপনার পাওয়ার সেভিং মোড চালু থাকা সও্বেও, আপনি টেক্সটিং, ওয়েব ব্রাউজিং এবং সোশাল মিডিয়া অ্যাপ্লিকেশন গুলিতে অ্যাক্সেস করতে পারবেন। আপনি যদি সবসময় এটি ব্যাবহার করতে না চান তাহলে আপনি যদি দেখেন যে আপনার ফোনের চার্জ শেষ হয়ে আসতেছে আপনি তখন এটি অন করে আপনার ব্যাটারির পাওয়ার নিদির্ষ্ট সময় থেকে কিছুক্ষণ বাড়িয়ে নিতে পারেন


২. নিজেই ব্রাইটনেস সেট করুন


আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনে অটো-উজ্জ্বলতা ব্যবহার করা সুবিধাজনক হলেও এটি ব্যাটারির পাওয়ার দ্রুত শেষ করে দেয়। এবং ব্যাটারির মেয়াদ কমিয়ে দেয়। কারণ সিস্টেমটি আপনার প্রয়োজনের তুলনায় ক্ষতি বেশি করে। আপনার ব্যাটারির আয়ু বাড়ানোর জন্য, সেটিংস > অপশনে গিয়ে, ব্রাইটনেস সুবিধা মতো সেট করুন। ব্যাটারির আয়ু বাড়াতে আপনার ফোনের স্ক্রিনের অটোমেটিক লক টাইম ১৫ সেকেন্ডের কম করে দেন। যাতে আপনার ফোনের স্ক্রিনটি ব্যাবহার না করা অবস্থয় দ্রুত অপ হয়ে যায়। এতে আপনার
ব্যাটারির আয়ু আরো দীর্ঘস্থায়ী হবে।


৩. আপনার ফোনে অব্যবহৃত বা খুম কম ব্যবহৃত অ্যাপ্লিকেশন।


আপনার ফোনে যত বেশি অ্যাপ রয়েছে ততক্ষণ আপনার অ্যাপ গুলো চালিয়ে যাওয়ার জন্য তত বেশি শক্তি ব্যবহার করবে। আপনি যদি আপনার
ব্যাটারির আয়ু বাড়াতে চান তাহলে আপনার ফোনে অ্যাপ যত কম সম্ভব রাখার চেষ্টা করুন।
আপনার ফোনে প্রয়োজনীয় অ্যাপস গুলো চাড়া যে অ্যাপস থাকবে ওগুলো আনইন্সটল করে দিন।


৪. সঠিক পদ্ধতিতে ফোন চার্জে দেওয়ার নিয়ম


how-to-save-battery-life-android

অনেকে আছেন যারা ফোন চার্জে দিয়ে ফুল চার্জ না করে ফোনটি চার্জ থেকে খুলে না। কিন্তু এইটা ব্যাটারির জন্য ক্ষতিকর। প্রতিবাল ফুল চার্জ করার জন্য একটু একটু করে ব্যাটারির ক্ষমতা কমে যায় এইভাবে ছয় সাত মাস পরে দেখা যায় ব্যাটারিতে একদমই চার্জ থাকে না। তাই সব সময় ফুল চার্জ করবেন না। ৯০% হলেই খুলে ফেলুন।

কখনো মোবাইল সারারাত চার্জে লাগিয়ে রাখবেন না। অনেকে মনে করে মোবাইল সারারাত চার্জে লাগিয়ে রাখলে অভারচার্জিং হয়ে ব্যাটারি ফুলে যায় বা ড্যামেজ হয়ে যায়। কিন্তু এখনকার ফোনগুলো এমনভাবে তৈরি করা হয় যে ১০০% চার্জ হওয়ার পর আর চার্জ নেই না। কিন্তু এতে ব্যাটারি একেবারে ড্যামেজ না হলেও ব্যাটারির চার্জ টিকে।

ফোন চার্জে লাগিয়ে কখনো ব্যবহার করবেন না
এতে ব্যাটারির ক্ষতি হয়। এবং ফোন চার্জে লাগানোর সময় ফোনের ডাটা, ব্লুটুথ, জিপিএস, লকোশেন, ওয়াইফাই, এগুলো অপ করে চার্জ দিবেন এতে ব্যাটারি ভালো ব্যাকআপ দিবে।

how-to-save-battery-life-android

কখনো চার্জ ২০% এর নিছে চলে আসলে সে সময় ফোন ব্যবহার করা থেকে দূরে থাকুন। ওই সময় ফোন থেকে ক্ষতিকারক রেডিয়েশন বের হয় এবং ব্যাটারির জন্য ও ক্ষতিকারক এতে ব্যাটারি আস্তে আস্তে ডাউন হয়ে যায়।

কখনো সস্তা, নরমাল বা ওন্য ডিভাইসের চার্জার দিয়ে চার্জ দিবেন না এতে ব্যাটারি ভাল ব্যাকআপ দিবে না। সবসময় চেষ্টা করবেন ফোনের সাথে যে

চার্জার দেওয়া হয়েছে সেই চার্জার দিয়ে চার্জ দেওয়ার।

how-to-save-battery-life-android

মাসে একবার হলেও ফোনের চার্জ ফুল শেষ করে নতুন করে আবার চার্জ দিন। এতে ব্যাটারির
চার্জ ভাল ব্যাকআপ দিবে।

ফোন চার্জে দেওয়ার সময় অবশ্যই ফোনের কাভার খুলে চার্জে দিবেন। এতে ফোনের তাপমাত্রা বেড়ে যাওয়ার প্রবণতা কমে যায়। স্বাভাবিক ভাবে ফোন চার্জে দিলে একটু তাপমাত্রা বেড়ে যায়। কিন্তু যদি কাভার খুলে চার্জে দেওয়া হয় তাহলে ফোনে বাতাস ডুকার ফলে তাপমাত্রা বেড়ে যাওয়ার প্রবণতা কমে যায়।


৫. হোম স্ক্রিন সেট করুন


হোম স্ক্রিনে অনেকে ওয়ালপেপার হিসাবে লাইভ
ওয়ালপেপার বা আকর্ষণীয়, উজ্জ্বল কিছু ওয়ালপেপার ব্যবহার করে থাকে যাতে ফোনটি দেখতে আকর্ষণীয় লাগে। কিন্তু এতে যেমন আপনার ফোন আকর্ষণীয় লাগবে তেমনই আপনার ব্যাটারির ব্যাকআপ ও দ্রুত শেষ হয়ে যাবে। তাই ব্যাটারির ভাল ব্যাকআপের জন্য হোম স্ক্রিনে ডার্ক ওয়ালপেপার ব্যবহার করুন।



৬. নোটিফিকেশন সেট করুন


how-to-save-battery-life-android


অনেকে আমরা প্রয়োজনীয় অ্যাপস ছাড়াও অন্য অ্যাপস গুলোর ও নোটিফিকেশন অন করে রাখি। এতে করে বার বার নোটিফিকেশন আসার ফলেও ফোনের ব্যাটারির পাওয়ার কমে আসে। তাই অপ্রয়োজনীয় অ্যাপস গুলোর নোটিফিকেশন অপ করে দিন।


ডাটা, ওয়াইফাই, প্রয়োজন ছাড়া অপ রাখুন


অনেকের অভ্যাস আছে যে কোন কারন ফোনের ডাটা, ওয়াইফাই, ব্লুটুথ, জিপিএস, এগুলো অন করে রাখে এতে ফোনের চার্জ দ্রুত শেষ হয়ে আসে। তাই প্রয়োজন ছাড়া এগুলো অপ করে রাখুন।

অপ্রয়োজনীয় অনুমতি


যেমন পাঠাও, উভার, সহজ, এই অ্যাপস গুলো ব্যবহার করার জন্য লোকেশন অন রাখতে হয়। কিন্তু অন্য অ্যাপস গুলো ব্যাবহার করার জন্য লোকেশন অন রাখতে হয় না। অনেকে লোকেশন অন করে রাখে এর ফলেও ব্যাটারি চার্জ শেষ হয়ে যায়।

আরো পড়ুন : স্বল্প খরছে সাজেক ভ্রমন করুন।
                       শীতে ত্বকের জন্য ৫টি টিপস


৭. এন্টিভাইরাস অ্যাপস


ফোনে একটির বেশি এন্টিভাইরাস অ্যাপস রাখা থেকে বিরত থাকুন। সাধারণত এই অ্যাপস গুলো অনেক পাওয়ার ফুল হয়ে থাকে। এই অ্যাপস গুলো ব্যবহার না করলেও এগুলো ব্যাটারির চার্জ দ্রুত শেষ করে দেয়।


৮. থার্ডপার্টি অ্যাপস ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন


অনেকে ফাস্ট চার্জিং এর জন্য থার্ডপার্টি কিছু অ্যাপস ব্যবহার করে থাকে। আপনার মোবাইল যদি ফাস্ট চার্জিং না হয় তাহলে এই অ্যাপস গুলো আপনার ফোনের জন্য ক্ষতিকারক। এই অ্যাপস গুলো ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকুন।


৯. গেইমস খেলা থেকে বিরত থাকুন


how-to-save-battery-life-android

মোবাইলে গেইমস খেলার ফলে ব্যাটারির চার্জ দ্রুত শেষ হয়ে যায়। কারণ গেইমস গুলো অনেক পাওয়ার ফুল হয়ে থাকে। যার ফলে ব্যাটারির চার্জ স্বাভাবিক এর তুলনায় খুব দ্রুত শেষ হয়ে আসে এবং মোবাইলটি বার বার চার্জে লাগানোর প্রয়োজন পরে। এতে ব্যাটারি ড্যামেজ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখা দেয়। এছাড়াও মোবাইলের তাপমাত্রা বেড়ে যাওয়ার ফলে প্রসেসরে সমস্যা দেখা দিতে পারে।


১০. নতুন মোবাইল চার্জ করার নিয়ম


নতুন অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন কেনার সাথে সাথে তা ব্যাবহার করা থেকে বিরত থাকুন। নতুন অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন কিনে আগে ফোনের সাথে দেওয়া ডকুমেন্ট দেখে ফোন চার্জে দিন। সাধারণত ডকুমেন্ট দেওয়া থাকে প্রথমবার ফোনটি ব্যবহার করার আগে কতক্ষণ চার্জ দিতে হবে। আর যদিও বা দেওয়া না থাকে তাহলে কমপক্ষে ৫-৬ ঘন্টা ফোনটি চার্জ দিন। চার্জ ১০০% হওয়ার পর চার্জ থেকে ফোনটি খুলবেন।

Post a comment

3 Comments